• ...
ঢাকা, সোমবার, ২১ আগস্ট ২০১৭ | শেষ আপডেট ০০ মিনিট আগে
ই-পেপার
বিশ্ব শিশু ক্যান্সার দিবস আজ

প্রতি বছর আক্রান্ত হচ্ছে ১২ হাজার : চিকিৎসা পায় ২ হাজার শিশু

শামছুল ইসলাম
১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৫, রবিবার, ১০:০৪
ছয় বছর বয়সী শিশু রিমা। বাবা হাসানুজ্জামান যশোরের শার্শার প্রত্যন্ত এলাকা থেকে পাড়ি জমিয়েছেন মালয়েশিয়া। আদরের সন্তানকে মানুষ করবেন। উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করার লক্ষ্যেই তার বিদেশ যাত্রা। কিন্তু তার এই স্বপ্ন এখন ক্যান্সারে আক্রান্ত। চিকিৎসা নিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের শিশু হেমাটোলজি অ্যান্ড অনকোলজি বিভাগে ভর্তি। প্রতি বছর বাংলাদেশে রিমার মতো ৮ থেকে প্রায় ১২ হাজার শিশু ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে। এর মধ্যে চিকিৎসা পাচ্ছে মাত্র দুই হাজার শিশু। এমন পরিস্থিতিতে আজ পালিত হবে বিশ্ব শিশু ক্যান্সার দিবস।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের পেডিয়াট্রিক হেমাটোলজি অ্যান্ড অনকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা: আফিকুল ইসলাম নয়া দিগন্তকে বলেন, ২০১২ সালের আগে দেশে কী সংখ্যক ক্যান্সার আক্রান্ত শিশু রয়েছে তার কোনো তথ্য ছিল না। এর পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে আলাদাভাবে ক্যান্সারআক্রান্ত শিশুদের জন্য বিভাগ চালু হয়। ২০১২ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ১৪৮৭ জন ক্যান্সারআক্রান্ত শিশুর রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে। যাদের অধিকাংশ এখনো চিকিৎসাধীন। এর মধ্যে চিকিৎসায় সুস্থ হয়েছে ৫৮ শতাংশ রোগী। একই সময়ে যুক্তরাজ্যের ৮৭ শতাংশ শিশু সুস্থ হচ্ছে।
বাংলাদেশে দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে ক্যান্সারে  আক্রান্ত শিশুর সংখ্যা। কিন্তু সে হারে বাড়ছে না আধুনিক চিকিৎসাসেবা। ক্যান্সার বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যথাসময়ে রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসাসেবা গ্রহণ করলে এ ব্যাধি নিরাময় সম্ভব। প্রায় ৮ কোটির শিশুর দেশে ক্যান্সারআক্রান্ত শিশুর জন্য চিকিৎসক রয়েছেন মাত্র ২২ জন। রাজধানীর বাইরে ৮টি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পদ সৃষ্টি হলেও ডাক্তার নেই।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দেশের ২২ জন শিশু ক্যান্সার বিশেষজ্ঞের মধ্যে ২১ জনই রয়েছেন রাজধানীতে। এর মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ১১ জন, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে চারজন, জাতীয় ক্যান্সার ইনস্টিটিউটে চারজন ও জাতীয় শিশু হাসপাতালে দুইজন। বাকি একজন রয়েছেন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।
ময়মনসিংহ, সিলেট, রাজশাহী, বরিশাল, খুলনাসহ আটটি মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যান্সারআক্রান্ত শিশুর সেবায় পদ কৃষ্টি হলেও ডাক্তার ও নার্স নিয়োগ দেয়া হয়নি। ফলে ঢাকার বাইরের শিশুরা চিচিৎসাসেবা থেকে পুরোপুরি বঞ্চিত।
সংশ্লিষ্টরা জানান, শুধু চিকিৎসক, নার্স, অবকাঠামো আর সরঞ্জামের অভাবে দেশের ৯০ শতাংশ ক্যান্সারআক্রান্ত শিশুকে চিকিৎসাসেবার আওতায় আনা যাচ্ছে না। একই সাথে আর্থিক অনটন ও অজ্ঞতার জন্যও অনেক অভিভাবক চিকিৎসা করাতে চান না। সঠিক সময়ে ধৈর্যসহকারে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা করালে প্রায় ৮০ শতাংশ রোগী সুস্থ করা সম্ভব। এ েেত্র ডাক্তার, নার্স, অবকাঠামো ও সরঞ্জাম জরুরি।
বিশ্ব শিশু ক্যান্সার দিবস আজ। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সচেতনতামূলক র‌্যালি, মানববন্ধন ও আলোচনা।
বিশ্ববিদ্যালয়ের পেডিয়াট্রিক হেমাটোলজি অ্যান্ড অনকোলজি বিভাগের উদ্যোগে সকাল সাড়ে ৮টায় শাহবাগে র‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে। এরপর মানববন্ধন শেষে সকাল সাড়ে ৯টায় আয়োজন করা হয়েছে আলোচনা ও মতবিনিময়ের। এতে রোগীর অভিভাবক ও চিকিৎসকেরা অংশ নেবেন।

পাঠকের মতামত
আপনার মতামত
নাম
ই-মেইল
মতামত
CAPTCHA Image

নগর মহানগর -এর অন্যান্য সংবাদ
উপরে