• ...
ঢাকা, শনিবার, ২৪ জুন ২০১৭ | শেষ আপডেট ১৭ মিনিট আগে
ই-পেপার

কেউ সেনাবাহিনীর ঐক্যে ফাটল ধরাতে পারবে না : খাদ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৫, রবিবার, ১:০৫
খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেছেন, ‘বর্তমান সেনাবাহিনী দেশপ্রেমিক। তারা স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের অতন্ত্র প্রহরী। কারো প্ররোচনায় কিম্বা কোনো অবস্থাতেই সেনাবাহিনীকে বিভ্রান্ত করতে পারবে না। কেউ তাদের ঐক্যে ফাটল ধরাতে পারবে না।’
গতকাল জাতীয় প্রেস কাবে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমানের একটি মোবাইল কথোপকথনের সূত্র ধরে তিনি এসব কথা বলেন। ‘চলমান রাজনীতিÑ বিএনপি-জামায়াতের হিংসাত্মক কার্যকলাপের প্রতিবাদ’ শীর্ষক এ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।
খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘অতীতে যেমন জিয়াউর রহমানসহ অন্য সেনাকর্মকর্তারা বঙ্গবন্ধুসহ অসংখ্য মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যা করে অবৈধভাবে মতা দখল করেছে। এরশাদের সেনাবাহিনী অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেছে। বর্তমান সেনাবাহিনী ওই রকম না। বর্তমান সেনাবাহিনীর এ রকম ঘটনা ঘটানোর কোনো রকম সম্ভাবনা নেই।’
কামরুল ইসলাম বলেন, মাহমুদুর রহমান মান্না টেলিফোন আলাপে একজনকে বলছেন, এক সপ্তাহের মধ্যে নতুন সরকার গঠন করবে। এরা আসলে অবৈধভাবে বর্তমান সরকারকে ফেলে দিয়ে ক্ষমতা দখল করতে চায়। কিন্তু তারা জানে না সংশোধিত বর্তমান সংবিধানে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করার কোনো সুযোগ নেই।
সুশীলসমাজের সংলাপের প্রস্তাব নাকচ করে দিয়ে তিনি বলেন, ‘সংলাপের আহ্বান জানানো নাগরিক সমাজ হলো পরগাছা। এদের মাঠে নামানো হয়েছে সন্ত্রাসীদের সাথে সংলাপের কথা বলার জন্য।’
পেট্রলবোমা হামলায় মানুষ হত্যাকারীদের সন্ত্রাস দমন আইনে বিচার হবে জানিয়ে তিনি বলেন, এর সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড। কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। বেগম খালেদা জিয়াও মাফ পাবেন না।
অনুষ্ঠানে ড. হাছান মাহমুদ নাগরিক সমাজকে উদ্দেশ করে বলেন, দয়া করে পেট্রলবোমা মেরে মানুষ হত্যাকারী সন্ত্রাসীদের সাথে সংলাপের কথা বলে তাদের কাজের সহযোগী হবেন না। তাদের উৎসাহ দেবেন না। তিনি বিএনপি ও জোট নেতাদের উদ্দেশে বলেন, আন্দোলনে ব্যর্থতার দায়ে বিএনপি থেকে খালেদা জিয়াকে পদত্যাগ করতে বলুন।
আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা হাসিবুর রহমান মানিকের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের মহাসচিব অধ্যাপক কামরুল হাসান খান, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, আয়োজক সংগঠনের সভাপতি জিন্নাত আলী খান জিন্না প্রমুখ।
পাঠকের মতামত
আপনার মতামত
নাম
ই-মেইল
মতামত
CAPTCHA Image

নগর মহানগর -এর অন্যান্য সংবাদ
উপরে